আসব ফিরে-এ.পি অর্থী
আসব ফিরে এ.পি অর্থী বারেবারে আমি আসব ফিরে তালতলা-মধুমতি-বলেশ্বর সঙ্গম তটে আমার শ্যামলী গাঁয়ে, রোদে চিকচিক বালু হয়ে দূরন্ত বালকের কলার ভেলা কিংবা পালতোলা নৌকা রূপে। গাঁয়ের মেঠো পথের বুনোফুল নব বধূর কানের দুল, বুনোহাঁস-টুনটুনি- পানকৌরি কিংবা,তুলসী তলায় সাঁঝেরবাতি হয়ে, আমি জনমে জনমে আসব ফিরে, আমার গাঁয়ে। মেঘ ছোঁয়া কিশোরের ঘুড়ি অবোধ বালকের হাতের খেজুর […]
আসব ফিরে এ.পি অর্থী বারেবারে আমি আসব ফিরে তালতলা-মধুমতি-বলেশ্বর সঙ্গম তটে আমার শ্যামলী গাঁয়ে, রোদে চিকচিক বালু হয়ে দূরন্ত বালকের কলার ভেলা কিংবা পালতোলা নৌকা রূপে। গাঁয়ের মেঠো পথের বুনোফুল নব বধূর কানের দুল, বুনোহাঁস-টুনটুনি- পানকৌরি কিংবা,তুলসী তলায় সাঁঝেরবাতি হয়ে, আমি জনমে জনমে আসব ফিরে, আমার গাঁয়ে। মেঘ ছোঁয়া কিশোরের ঘুড়ি অবোধ বালকের হাতের খেজুর পাতার চড়কি, কাঁশ কলমি শেফালী কিংবা, অজানা কোন ফুলের কুড়ি। রাতের নীল জ্যোৎস্না,ঝিলের শাপলা ঘাসফড়িং কিংবা কিশোরীর চুলের ফিতা, বারেবারে আমি আসব ফিরে কোন না কোন নব রূপে এই বাংলা মায়ের কোলে।