দিবস যদি সাঙ্গ হল, না যদি গাহে পাখি – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
দিবস যদি সাঙ্গ হল, না যদি গাহে পাখি - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর---গীতাঞ্জলি দিবস যদি সাঙ্গ হল, না যদি গাহে পাখি, ক্লান্ত বায়ু না যদি আর চলে-- এবার তবে গভীর করে ফেলো গো মোরে ঢাকি অতি নিবিড় ঘন তিমিরতলে স্বপন দিয়ে গোপনে ধীরে ধীরে যেমন করে ঢেকেছ ধরণীরে, যেমন করে ঢেকেছ তুমি মুদিয়া-পড়া আঁখি, ঢেকেছ তুমি রাতের […]
দিবস যদি সাঙ্গ হল, না যদি গাহে পাখি - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর---গীতাঞ্জলি দিবস যদি সাঙ্গ হল, না যদি গাহে পাখি, ক্লান্ত বায়ু না যদি আর চলে-- এবার তবে গভীর করে ফেলো গো মোরে ঢাকি অতি নিবিড় ঘন তিমিরতলে স্বপন দিয়ে গোপনে ধীরে ধীরে যেমন করে ঢেকেছ ধরণীরে, যেমন করে ঢেকেছ তুমি মুদিয়া-পড়া আঁখি, ঢেকেছ তুমি রাতের শতদলে। পাথেয় যার ফুরায়ে আসে পথের মাঝখানে, ক্ষতির রেখা উঠেছে যার ফুটে, বসনভূষা মলিন হল ধুলায় অপমানে শকতি যার পড়িতে চায় টুটে-- ঢাকিয়া দিক তাহার ক্ষতব্যথা করুণাঘন গভীর গোপনতা, ঘুচায়ে লাজ ফুটাও তারে নবীন উষাপানে জুড়ায়ে তারে আঁধার সুধাজলে। কলিকাতা, ২৯ শ্রাবণ, ১৩১৭
Previousশেষের মধ্যে অশেষ আছে – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
Nextভারত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *